চলন্ত বাসে ধর্ষণচেষ্টা: লাফিয়ে বাঁচলেন তরুণী

63
ধর্ষণচেষ্টা

পত্রিকা রিপোর্ট : চলন্ত বাসে এক শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ চেষ্টার ঘটনায় ড্রাইভার-হেলপারসহ অজ্ঞাতনামা তিন আসামির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন ভুক্তভোগী তরুণীর বাবা।
সিলেট থেকে দিরাইগামী বাসে এক শিক্ষার্থীকে ধর্ষণচেষ্টা করেছেন ওই বাসের চালক ও হেলপার। শনিবার (২৬ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় দিরাই পৌরসভার সুজানগর গ্রামের পাশে গাড়ির ভেতরে এ ঘটনা ঘটে।
ঘটনার প্রতিবাদে বিক্ষুব্ধ জনতা থানা পয়েন্টে সড়ক অবরোধ করলে পুলিশের আশ্বাসে অবরোধ প্রত্যাহার করে জনতা। পরে, ধর্ষণ চেষ্টা ও শ্লীলতাহানির অভিযোগ এনে দিরাই থানায় পরিবারের পক্ষ থেকে একটি মামলা করা হয়েছে।

আরও পড়ুন : সর্বোচ্চ গোলের বিশ্বরেকর্ড মেসির!

ওসি আশরাফুল ইসলাম জানান, শনিবার সন্ধ্যায় সিলেট থেকে ছেড়ে আসা দিরাইগামী একটি যাত্রীবাহী বাসে করে (সিলেট জ-১১০৭২৩) আসছিলেন ওই কলেজছাত্রী। দিরাই পৌরশহরের সুজানগর এলাকায় আসার পর তিনি ছাড়া বাকি যাত্রীরা নেমে যান। কোনো যাত্রী না থাকার বাসের ড্রাইভার ও হেলপার মিলে তাকে উত্ত্যক্ত করার এক পর্যায়ে ধর্ষণের চেষ্টা চালায়। সম্ভ্রম বাঁচতে একপর্যায়ে চলন্ত বাস থেকে লাফ দিয়ে সড়কের পাশে পড়ে যান ওই শিক্ষার্থী। গ্রামবাসী আহত অবস্থায় তরুণীকে উদ্ধার করে দিরাই হাসপাতালে নিয়ে গেলে রাতেই চিকিৎসক তাকে উন্নত চিকিৎসা জন্য সিলেট এম এজি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠান। বর্তমানে ওই তরুণী সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি আছে। রাতেই ওই তরুণীর বাবা বাদী হয়ে দিরাই থানায় বাসের ড্রাইভার-হেলপারসহ অজ্ঞাতনামা তিনজনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন।

আরও পড়ুন : আজ শুভ বড়দিন

ওসি আশরাফুল ইসলাম আরও জানান, এঘটনার পর থেকে আসামিরা পলাতক রয়েছে। এখন পর্যন্ত কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। তাদের গ্রেপ্তার করতে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালানো হচ্ছে।
এদিকে ঘটনার প্রতিবাদে এবং আসামিদের গ্রেফতারের দাবিতে বেলা সাড়ে ১১টায় মানববন্ধন করবে সুনামগঞ্জ সামাজিক প্রতিরোধ কমিটি।