ফাইজারের টিকা : ভাবাচ্ছে সংরক্ষণ ব্যবস্থায়

2

পত্রিকা ডেস্ক : এবার আশা জাগাচ্ছে ফাইজারের টিকা। এরইমধ্যে বাংলাদেশ সরকারকে চিঠি দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও দাতা সংস্থা গ্যাভির সম্মিলিত জোট কোভ্যাক্স। সব কিছু ঠিক থাকলে, আগামী মে মাসের আগেই পাওয়া যেতে পারে প্রায় ৪ লাখ ভ্যাকসিন। সে অনুযায়ী প্রস্তুতি নিলেও ভাবাচ্ছে ফাইজারের টিকার সংরক্ষণ ব্যবস্থা।

আরও পড়ুন : ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা ভাইরাসে আরও মৃত্যু ২২ ও শনাক্ত ৮৪৯

করোনা মোকাবেলায় যে ক’টি টিকা আশা দেখাচ্ছে মানুষকে- তার একটি ফাইজার- বায়োএনটেকের ভ্যাকসিন। এরই মধ্যে এর ব্যবহার শুরু করেছে, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, কানাডাসহ বেশ কয়েকটি দেশ।
বাংলাদেশেরও এই টিকা পাবার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও দাতা সংস্থা গ্যাভির সম্মিলিত জোট কোভ্যাক্সের মাধ্যমে, তা পেতে পারে দেশ। এজন্য বাংলাদেশ সরকারকে চিঠি দেয়া হয়েছে। আগ্রহ প্রকাশ করলে জানুয়ারির মধ্যেই জানাতে হবে সংস্থাটিকে, সেই সাথে দিতে হবে স্বীকৃতিও। এনিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সাথে বৈঠক করেছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও মন্ত্রণালয় সংশ্লিষ্টরা।

আরও পড়ুন : জানুয়ারির মধ্যে এইচএসসির ফল প্রকাশ

ফাইজারের টিকা নিয়ে ইতিবাচক বাংলাদেশ। যদিও ভাবাচ্ছে এর সংরক্ষণ ব্যবস্থাপনা। কারণ হিমাঙ্কেরও ৭০ ডিগ্রী সেলসিয়াস নীচে রাখতে হবে তা। আইসিডিডিআরবি, আইইডিসিআরসহ সীমিত কয়েকটি জায়গায় আছে এই সুবিধা। কঠিন হবে ঢাকার বাইরে টিকা পৌঁছানো।
স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সংশ্লিষ্টরা আশা করছেন, মে মাসের আগেই দেশে পৌঁছে যাবে কোভ্যাক্সের ভ্যাকসিন।