ফুড পান্ডায় কুটুম বাড়িতে কাচ্চি অর্ডার দিয়ে পাওয়া যাচ্ছে চিকেন বিরাণী

200

স্টাফ রিপোর্ট : ফুড পান্ডা তার সার্ভিস ও মার্কেটিং পলিসির কারনে জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে অনেক আগেই। সেই সাথে জনপ্রিয়তা রয়েছে কুটুম বাড়ি রেস্তোরাও। আর এই জনপ্রিয়তা ক্ষতির কারন হয়েছে স্বনাম ধন্য এই দুই কোম্পানীর। বলছিলেন নগরীর কেডিএ এভিনিউ এর ৬৮/বি, কেডিএ এভিনিউ খুলনা এর আমীন প্লাজার ৫ম ফ্লোরের এস এন্ড এ কর্পোরশন ও স্বাধীন বাজারের আঞ্চলিক কর্মকর্তা নাজুমল হোসেন চৌধুরী।
তিনি জানান, ৩০ সেপ্টেম্বর সোমবার দুপুরে অফিস মিটিং শেষ করার পর কাজ থাকায় খাবার জন্য বাইরে যেতে পারেনি। তাই খাবারের জন্য দ্বারস্থ হয় ফুড পান্ডা এর উপর। সেখানে কুটুম বাড়ি রেস্তোরার খাবার চল্লিশ পার্সেন্ট ছার দেখে সেখানে অর্ডার দিই দুটি কাচ্চি বিরিয়াণী ১৯৬ টাকায়।  সেই সময়ে ওরা ৩০ মিনিট সময় নেওয়ার কথা বললেও আসে আরো বেশি সময় পর ডেলিভারি দেয়। কিন্তু ডেলিভারি ম্যানের কাছ থেকে খাবার নেওয়ার পর অফিসে এনে খুলে দেখি একটি কাচ্চি বিরিয়ানি ও একটি চিকেন বিরিয়ানি দিয়েছে। যার মান জঘন্য। অথচ কাচ্চি বিরিয়ানির মূল্য ৯০ টাকা ৪০% ছার দিয়ে আর চিকেন বিরিয়ানি ৭২ টাকা।

তিনি বলেন, এই জ্বালিয়াতির কি বিচার হবে। কুটুমবাড়ির নাম্বারে ফোন দিলেও তিনি রিসিভ করেনি। ফুড ম্যাসেঞ্জারের হেল্প ডেস্কে বলার পরেও কোন কিছু হয়নি।
এই বিষয়ে ফুট পান্ডার ডেলিভারি ম্যান এর এই নাম্বারে ০১৯১৩৫৭৭৮১৮ যোগাযোগ করা হলে দেখা যায় এটি ট্রু কলারে সোহাগ নাম আসতেছে। তিনি জানান, যে সে শুধুমাত্র খাবার ডেলেভারি দেন এর মান বা সমস্যার বিষয়ে কিছু করতে পারবে না।
কুটুম বাড়ি রেস্তোরার খাবারের প্যাকেটে থাকা টিএন্ডটি নাম্বার ও ম্যানেজারের নাম্বারে চার বার ফোন দিলেও তারা রিসিভ করেনি। ০১৭১২ ০৬৮৮৬১ নাম্বারে দুই বার ফোন দেবার পর তৃতীয় বার ফোন দিলে তিনি রিসিভ করেন। সমস্যার কথা শুনে বলেন, ‘ওরা আমার মান সম্মান খাবে’। তিনি বলেন ফুড পান্ডাকে বলেন ওরা গিয়ে ঝাইর দিলে ঠিক হবে। আর প্যাকেটে অন্য যে নাম্বার সেই নাম্বারে যোগাযোগ করেন। তকে বলা হয় সেই নাম্বারে রিং হচ্ছে কেউ রিসিভ করেন না। আর তার পরিচয় চাইলে তিনি মালিক কিনা তখন তিনি ফোন কেটে দেন।
এই বিষয়ে নাজমুল হোসেন চৌধুরী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোষ্ট দিলে সেখানে পরিচিত আরো কয়েকজ একই অভিযোগ করেন ফুডপান্ডা ও এখানে অফারে দেওয়া বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের খাবার নিয়ে।

এই ব্যাপারে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষন অধিদপ্তর খুলনা জেলা কার্যালয়ের সহকারি পরিচালক শিকদার শাহিনুর আলম এর নিকট কথা বললে, তিনি জানান ফুট পান্ডা, কুটুম বাড়ির নয় শুধু এমন অন লাইন সার্ভিস যারা দেয় তাদেও বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দিলে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।