Monday, July 15, 2024
Monday, July 15, 2024
Homeফিচারমিলে গেলেন মেসি আর ইয়ামাল! দুদেশের দুই তারকাকে মিলিয়ে দিল একটা গোল।...

মিলে গেলেন মেসি আর ইয়ামাল! দুদেশের দুই তারকাকে মিলিয়ে দিল একটা গোল। মিলিয়ে দিল একটা ছবি। ইউরোতে ফ্রান্সের বিরুদ্ধে শেষচারের ম্যাচে গোল করেন ইয়ামাল। কোপাতেও একই দিন গোল পেয়েছিলেন মেসি। 

সম্প্রতি মেসির সঙ্গে এক শিশুর ছবি সোশাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। সেই ছবিতে দেখা যাচ্ছে, একটি শিশুকে বাথটবে বসিয়ে গোসল করাচ্ছেন বছর ২০ বয়সের মেসি। মেসির কোলের ওই শিশুটিই আজকের ইয়ামাল। গত কয়েক সপ্তাহ ধরেই মেসি-ইয়ামালের এই ছবিটি নিয়েই চর্চা চলছে। ইউরোর ময়দানে ফুল ফোটাচ্ছেন ইয়ামাল।ছবিটি তখন যিনি তুলেছিলেন, সেই আলোকচিত্রী জোয়ান মনফোর্ট সেদিনের অভিজ্ঞতা জানিয়ে বলেছেন, ‘মেসির তখন ২০ বছর বয়স। খুবই লাজুক ছিল। হঠাৎ ওকে লকার রুমে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে গিয়ে দেখে একটা পানিভর্তি বাথটাব। তার মধ্যে একটি শিশু। ও থতমত খেয়ে গিয়েছিল। বাচ্চাটাকে কী করে ধরবে প্রথমে বুঝতেই পারছিল না।’

মনফোর্ট জানিয়েছেন, বার্সেলোনার ঘরের মাঠ ন্যু ক্যাম্পে একটি ফটোশুটের সময় প্রথম শিশু ইয়ামালকে দেখেছিলেন মেসি। সেসময় পুরো দল নিয়ে এক অনুষ্ঠানে যাওয়ার আমন্ত্রণ পেয়েছিল বার্সেলোনা। সঙ্গে ছিলেন মেসি। তখনই এই ছবিটি তোলা হয়।

লামিনে ইয়ামালের বাবা গত সপ্তাহে ইন্সটাগ্রামে এই ছবিগুলো পোস্ট করেন, সঙ্গে লেখেন ‘দ্য বিগিনিং অব টু লেজেন্ডস’। অর্থাৎ, ‘দুই কিংবদন্তির যাত্রা শুরু।’ 

কয়েক মাস আগেই বার্সেলোনার সর্বকনিষ্ঠ ফুটবলার হিসেবে লা লিগায় খেলেছেন লামিনে ইয়ামাল। স্পেনের বাসিন্দা হলেও তার সম্পর্ক রয়েছে আফ্রিকার সাথেও, ইয়ামালের বাবা মরোক্কান এবং মা ইকুয়েটরিয়াল গিনির নাগরিক।

২০২২ সালে স্পেনের কিংবদন্তি জাভির চোখে পড়ে যান এই ক্ষুদে ফুটবলার, এরপর সিনিয়র দলের সাথে তাকে অনুশীলন শুরু করান জাভি। লামিন ইয়ামাল নিজের ফুটবল ক্যারিয়ারের শুরুতে ছিলেন পজিটিভ স্ট্রাইকার, কিন্তু বর্তমানে ডানপ্রান্তিক মিডিও বা উইঙ্গার হিসেবে খেলেন। ১৫ বছর ৯ মাস ১৬ দিন বয়সে বার্সলোনার জার্সিতে লা লিগায় রিয়াল বেতিসের বিপক্ষে মাঠে নেমে ক্লাবের ইতিহাসে সর্বকনিষ্ঠ ফুটবলার হিসেবে সিনিয়র দলে খেলার নজির গড়েন তিনি।

লিওনেল মেসির সঙ্গে লামিন ইয়ামালের তুলনা করেছিলেন এলএমটেনের এক সময়ের সতীর্থ জাভি হার্নান্দেজ। বাবা মরোক্কান হওয়ায় এবং নিজে স্পেনের নাগরিক হওয়ায় লামিন ইয়ামাল চাইলে দুই দেশের হয়েই প্রতিনিধিত্ব করতে পারেন, এছাড়াও ইকুয়েটরিয়াল গিনির হয়েও চাইলে খেলতে পারতেন তিনি। তবে তার বাবা এবং মায়ের দেশ, কোনোটিতেই তিনি খেলেননি। শেষ পর্যন্ত স্পেনের জার্সিতেই তিনি মাঠে নামেন। এরই মধ্যে, মাত্র ১৬ বছর বয়সে লামিনে ইয়ামাল স্পেন এবং বার্সেলোনা উভয়ের জন্যই একজন তারকা হয়ে উঠেছেন।

মেসির মতোই বার্সেলোনার অ্যাকাডেমি লা মাসিয়ায় ফুটবলের শুরু স্পেনের ১৬ বছরের উইঙ্গারের। স্পেনের অনূর্ধ্ব ১৫, ১৬, ১৭, ১৯ সব দলের হয়ে খেলেছেন। জাতীয় দলের হয়েও খেলে ফেললেন ১৩টি ম্যাচ।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -spot_img

Most Popular

Recent Comments